আন্দোলনের মুখে করেরহাট স্কুল মাঠে মার্কেট নির্মাণ থেকে পিছু হটলো ম্যানেজিং কমিটি!


নিজস্ব প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ে বিদ্যালয়ের মাঠ নষ্ট করে মার্কেট নির্মাণের ঘোষনা দেয়ায় বর্তমান, প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর প্রতিবাদের কারণে পিছু হটেছে স্কুল পরিচালনা কমিটি। মঙ্গলবার ( ১ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার ঐতিহ্যবাহী করেরহাট কেএম উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ রার্থে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় করেরহাট কে এম উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী মোহাম্মদ কর্মকর্তা রুহুল আমিন। মানববন্ধন শেষে প্রধান শিক বাহার উদ্দিন ভূইয়ার কে এক জরুরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন, মাধ্যমিক শিা কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির খাঁন, করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন, করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম, সাধারণ সম্পাদক শেখ সেলিম, করেরহাট কে এম উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি শাখাওয়াত উল্লাহ রিপন, প্রধান শিক বাহার উদ্দিন ভূঁইয়া, প্রাক্তন ছাত্র আলা উদ্দিন আলো, আমিনুল হক সজীব বক্তব্য রাখেন।

জানা গেছে, করেরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের ১২ শতক জায়গায় ২ কোটি ৭৩ লাখ টাকায় একটি চারতলা ভবন নির্মাণের শুরু করার পক্রিয়ায় রয়েছে। কিন্তু কয়েকদিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিদ্যালয়ের মাঠের পাশে মার্কেট নির্মানের কথা বলে দোকান বরাদ্ধের জন্য প্রধান শিক্ষক বাহার উদ্দিন ভূঁইয়া একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, প্রাক্তন শিক্ষার্থী, এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। মার্কেট নির্মাণ না করতে মানববন্ধন করে তারা।

প্রাক্তন শিক্ষার্থী আলা উদ্দিন আলো ও আমিনুল হক সজিব বলেন, আমরা বিদ্যালয় ভবন নির্মানের পক্ষে। কিন্তু মাঠ নষ্ট করে মার্কেট নির্মাণ করলে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা বন্ধ হয়ে যাবে। পাশাপাশি বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য্য নষ্ট হবে। আমরা অবিলম্বে মার্কেট নির্মাণের ঘোষনা প্রত্যাহারের জোর দাবী জানাচ্ছি।

করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন বলেন, আমাদের প্রিয় অভিবাবক, সাবেক সফল মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি স্কুলের জন্য একটি বহুতল ভবন বরাদ্ধ দিয়েছেন। শিক্ষার্থী, প্রাক্তন শিক্ষার্থী, এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উনার প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। আমরা চাই ভবন নির্মাণ হোক। কিন্তু মাঠ নষ্ট করে মার্কেট নির্মাণ করার প্রয়োজন নেই। মার্কেট নির্মাণ করতে হলে বিদ্যালয় মাঠের জন্য জায়গা ক্রয় করে তারপর করতে হবে।

এদিকে ভবন নির্মানের জন্য উপজেলা নির্বাহী মোহাম্মদ কর্মকর্তা রুহুল আমিন ৯ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। ওই কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে রিপোর্ট দেয়ার নিদের্শ দেয়া হয়।
এবিষয়ে করেরহাট কেএম উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি শাখাওয়াত উল্লাহ রিপন বলেন, আমরা রেজুলেশানের মাধ্যমে স্কুল এন্ড কলেজ হলে মার্কেট নির্মানের সীদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এখন যেহেতু সবাই বিরোধীতা করছে তাই মার্কেট নির্মানের সীদ্ধান্ত বাতিল করা হলো এবং আমরা রেজুলেশান করবো যাতে আগামীতেও কোন মার্কেট নির্মাণ করতে না পারে।

উপজেলা নির্বাহী মোহাম্মদ কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, আপাতত মার্কেট নির্মানের সীদ্ধান্ত বাতিল করা হয়েছে। ভবন নির্মাণ নিয়ে ৯ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। উক্ত কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে বিষয়টি সমাধান করতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*