জাতীয়তাবাদের শত্রুমিত্র চেনা জরুরি

১৯৮৬ সালে এরশাদের অধীনে হঠাৎ আওয়ামী লীগ ও জামায়াত নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলো। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি ও সাত দলীয় জোট নির্বাচন বর্জন করেছিলো। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট এ সিদ্ধান্তের কারণে ভেঙ্গে গেলো এবং হাসানুল হক ইনুর জাসদ, খালেকুজ্জামান ভূইয়ার বাসদসহ ৫ দলীয় বাম জোট আওয়ামী সিদ্ধান্তের বাহিরে এসে খালেদা জিয়ার নির্বাচন বর্জন কর্মসূচিতে শামিল হয়েছিলো। আওয়ামী লীগের ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, জাতীয় পার্টির অ্যাডভোকেট আবু সালেক (বর্তমানে মরহুম) ও জামায়াতের মাওলানা শামসুদ্দিন (বর্তমানে মরহুম) এর নির্বাচনী প্রচারণার বিপরীতে খালেদা জিয়ার নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা। মিরসরাই উপজেলা বিএনপির তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক এম আলাউদ্দিনের (বর্তমানে মরহুম) নেতৃত্বে জনাব আবু তাহের মেম্বার (বর্তমানে মরহুম), আ. ক. ম. জান্নাতুল করিম খোকন, কামাল উদ্দিন বালা (মরহুম), আবদুল আউয়াল চৌধুরী, মফিজ উদ্দিন মেম্বার, ছাত্রদল নেতা মহসিন আলী, আলাউদ্দিন, দেলোয়ারসহ আমরা এই কয়জন সমগ্র মিরসরাইতে ভোট বর্জনের পক্ষে পথসভা করতে নেমে পড়লাম। এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন কামাল উদ্দিন বালা ও মহসিন আলীর জ্বালাময়ী বক্তৃতা ছিলো তখন আমাদের কাছে অনুকরণীয়, এম আলাউদ্দিনের দৃঢ়তা ছিলো শিক্ষনীয়।সেদিন অনেকেই নৌকা ঠেকাতে জামায়াত-জাতীয় পার্টির নির্বাচনী ক্যাম্পে শামিল হয়েছিলেন। বারবার আহ্বান সত্ত্বেও খালেদা জিয়ার আহ্বানে নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্তে দৃঢ় ছিলাম। এবং ভোট বর্জনকারী একমাত্র ব্যাক্তি হিসাবে এলাকাতে খুব আলোচিত ছিলাম ।সে মুহুর্তে নিজেকে একা মনে হলেও পরবর্তীতে আমরাই জিতেছিলাম । আঁতাতের পার্লামেন্ট ভেঙ্গে গেলো, খালেদা জিয়া আপোষহীন নেত্রী হিসাবে অধিষ্ঠিত হলেন। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে এরশাদের পতন হলো এবং ৯১ এর নির্বাচনে বিএনপি ক্ষমতায় আসলো।ওই আঁতাতের নির্বাচনে যারা খালেদা জিয়ার আহ্বানের চেয়েও নিজেরাই জামায়াত-জাতীয় পার্টিতে শামিল হয়ে নৌকা ঠেকানোকে জরুরি মনে করেছিলেন তারা আদর্শিক বিএনপি নয়। যারা ভোট বর্জন করেছিলো তাঁরাই প্রকৃত বিএনপি।বর্তমানে জোটগত সমীকরণে বিএনপির লাভ-ক্ষতি হিসেব করতে যদি ভুল হয় তাহলে মাশুল দিতে হবে।জাতীয়তাবেদের শত্রু-মিত্র চেনাও জরুরি।

লেখক– শাহীদুল ইসলাম চৌধুরী

যুগ্ম আহবায়ক
মিরসরাই উপজেলা বিএনপি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*