অপুকে স্ত্রী বলে স্বীকার করে নিলেন শাকিব

 

বিনোদন প্রতিবেদক…

চিত্রনায়িকা অপুকে স্ত্রী বলে স্বীকার করে নিলেন অভিনেতা শাকিব খান। আর এর মাধ্যমে সব জটিলতার অবসান ঘটতে যাচ্ছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।
নানা জল্পনা-কল্পনার মধ্যে মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমে শাকিব বলেন, ‌‘চিত্রনায়িকা অপু আমার স্ত্রী আর আব্রাহাম আমারই সন্তান। অপুকে কেউ ভুল বুঝিয়ে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করেছে। এখন আমাদের সম্পর্ক স্বাভাবিক। গতকাল আমি রাগের মাথায় গণমাধ্যমে অনেক কথা বলেছি।’
শাকিব খান আরো বলেন, ‘অপু আমার সন্তানের মা, আমরা একসঙ্গে ছিলাম। খুব ভালোই ছিলাম। তিন দিন আগেও তো একসঙ্গে ঘোরাঘুরি করেছি। আমরা তো ভালোই ছিলাম। ভবিষ্যতেও আমি আমার সন্তানের মাকে নিয়ে ভালোভাবেই থাকব।’
আর অপু বিশ্বাস বলেছেন, তিনি যা কিছু করেছেন নিজের সামাজিক স্বীকৃতি আর সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে করেছেন। কেউ ষড়যন্ত্র করে তাকে দিয়ে কিছু করাননি।
চিত্রনায়ক শাকিব খানের সঙ্গে টেলিফোন কথার শুরুতে প্রথমেই কথা হয়, আজ যে তার সংবাদ সম্মেলন করার কথা ছিল তা নিয়ে। যে বিষয়টি তিনি নাকচ করে দিয়ে বলেন, সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে কাউকে কিছু বলেননি। তিনি আরো বলেন, ‘সম্মেলন করার কথা ছিল সে কথা কে বলল কাকে? আমি কোনো সাংবাদিককে বলেছি যে, আমি সংবাদ সম্মেলন করব? এটা একটা উড়ুউড়ু খবর। যে চক্রটা আমার পেছনে লেগেছিল, যে চক্রটা অপুকে উসকে দিয়েছে, ক্ষতি করার জন্য সবসময় কাছের লোকজন দরকার হয়।’
‘অপুকে স্বীকৃত দেব না, সন্তানকে স্বীকৃতি দেবো’, সাকিবের এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে শাকিব বলেন, ‘যেহেতু বাচ্চাটা আমার, তো ওয়াইফও আমার। সুতরাং বাচ্চা তো আর অবৈধ কিছু না। আমার ওয়াইফও অবৈধ না। না এরকম একটা বিষয় আমার কাম্য ছিল না, অপুও হয়তো বুঝতে পারেনি। বাট একটা চক্র হয়তো খুব ঠাণ্ডা মাথায় অপুকে উসকে দিয়ে কাজটা করিয়েছে এবং যারা সকে দিয়েছে, আমি নিজেও জানি কারা উসকে দিয়েছে। এটা ভুল হয়েছে। অপু হয়তো এখন রিয়ালাইজ করছে, জিনিসটা আসলেই হয়তো ভুল হয়ে গেছে। আর আমি আমার ছেলেকে কখনো এভাবে দেখতে চাইনি। এভাবে দেখতে চাইনি বিধায় আমি হয়তো রাগের মাথায় অনেক কথা হয়তো অনেক সময় বলে ফেলেছি।’ তিনি বলেন, গতকাল রাগের মাথায় তিনি অনেক কথা বলেছেন। প্রকৃত বিষয় হলো অপু আমার স্ত্রী আর আব্রাহাম আমার সন্তান। আমাদের মধ্যে কোনো সমস্যা নেই।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*