ইছাখালীতে স্বামীর টর্চ লাইটের আঘাতে স্ত্রী খুন

নিজস্ব প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ে স্বামীর টর্চ লাইটের আঘাতে রিজিয়া বেগম (৪৫) নামে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টায় উপজেলার ৬ নং ইছাখালী ইউনিয়নের ছুনিমিজিরটেক গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। জমি-জমার বিরোধে ঝগড়ার সময় স্বামী মোঃ জাহাঙ্গীরের হাতে থাকা টর্চ লাইটের আঘাতে স্ত্রী রিজিয়া মারা যায়। অভিযুক্ত স্বামী মোঃ জাহাঙ্গীরকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।
জোরারগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ফারুকী বলেন, পারিবারিক জায়গা জমির বিরোধের জের ধরে ৬নং ইছাখালী ইউনিয়নের ছুনিমিঝির টেক গ্রামে মৃত নুরুজ্জমার ছেলে মো. জাহাঙ্গীর (৫৫) এর সাথে তার ভাই মো. আলমগীর (৪৫), মো. খুরশিদ (৩০), মো. মিলন (২৭) দের ঝগড়া হয়। পারিবারিক জায়গার নিষ্পত্তির জন্য কথা বলার উদ্দ্যেশে মো. আলমগীর তার ভাই জাহাঙ্গীরের স্ত্রী রিজিয়া বেগম (৪২) এর কাছে ঢাকায় অবস্থান করা জাহাঙ্গীরের ছেলে ফারুকুর রশীদ এর মোবাইল নাম্বার নেয়। জাহাঙ্গীরের স্ত্রী তার দেবর আলমগীরকে ছেলে ফারুকুর রশীদ এর মোবাইল নাম্বার দেওয়ার কারণে জাহাঙ্গীর একটি ইলেকট্রিক টর্চ লাইট দিয়ে তার স্ত্রী রিজিয়া বেগমের পিঠে ও ঘাড়ের কাছে বারি দিয়ে আঘাত করে। এতে রিজিয়া বেগম মাটিতে পড়ে বেহুশ হয়ে যায়। রিজিয়া বেগমকে উদ্ধার করার জন্য আলমগীর ও মিলন এগিয়ে গেলে জাহাঙ্গীর টর্চ লাইট দিয়ে তাদেরও মারধর করে। পরে রাত সাড়ে ১২টায় স্থানীয় লোকজন রিজিয়া বেগমকে উদ্ধার করে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার রিজিয়া বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন।


তিনি আরো বলেন, সংবাদ পেয়ে পুলিশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ উপস্থিত হয়ে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত করে। মৃত দেহের শরীরে দৃশ্যমান কোনো আঘাত/জখম পরিলক্ষিত হয়নি। আশ-পাশের লোকজনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এর সত্যতা পাওয়া যায়। আহত হওয়া আলমগীর বর্তমানে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসাধীন আছেন। জাহাঙ্গীরকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*