ধুমের ইউপি সদস্য মোরশেদের পদত্যাগ চায় এলাকাবাসী


নিজস্ব প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ের ধুম ইউনিয়ন পরিষদের এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রকাশ করে প্রশাসনের কাছে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আবেদন জানিয়েছেন ভুক্তভোগী এলাকাবাসী। মঙ্গলবার (২৮এপ্রিল) ৪নং ধুম ইউনিয়ন পরিষদের ৫নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার হাসান মো. মোরশেদের বিরুদ্ধে নানান অপরাধ মুলক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে মিরসরাই উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ করেন। ওই লিখিত অভিযোগের অনুলিপি প্রেরণ করা হয়েছে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবরে।
লিখিত অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে ইউপি সদস্য হাসান মোরশেদ এলাকায় বেপরোয়া চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, চুরি, মাছ লুট সহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। এছাড়াও ভিজিএফ কার্ড, বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, বিধবা ভাতা দেয়ার কথা বলে অর্থ আদায়, শালিস মিমাংসা, রাস্তা নির্মান, জোর পূর্বক পুকুর সেচে মাছ লুট সহ নানা অপকর্মে অতিষ্ট এলাকার জনসাধারণ।
সর্বশেষ গত ১৬এপ্রিল দিবাগত রাত ১ টায় এক প্রবাসীর ৩০ হাজার ইট, রড ও বালুসহ নির্মান সামগ্রী চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় ইট বোঝাই ট্রাক (চট্টমেট্রো ন-১১১২২৬) আটক করে এলাকাবাসি। এসময় জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে ট্রাক ড্রাইভার আফসার জানায়, ইউপি সদস্য হাসান মো. মোরশেদের নির্দেশে সে এই ইটগুলো নিয়ে যাচ্ছিলো। দীর্ঘদিন ধরে ইট, মাছ লুট সহ এ ধরনের অপকর্ম গুলো তারা করে আসছিলো। এ ঘটনায় ১৭এপ্রিল জোরারগঞ্জ থানায় ওই প্রবাসীর ভাই বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-১১)।

একাধিক এলাকাবাসী জানান, মেম্বার মোরশেদ বেপরোয়া প্রকৃতির লোক। এলাকায় বিভিন্ন সময় নানা অপকর্মের সাথে সে জড়িত থাকলেও ইউপি সদস্য হওয়ায় কেউ সাহস করে মুখ খুলতে চায়নি। বর্তমানে সীমাহীন অন্যায়ে অতিষ্ঠ হয়ে যথাযথ কর্তৃপরে নিকট লিখিত অভিযোগ দিতে বাধ্য হয়েছেন ওই এলাকার ভুক্তভোগীরা। এলাকার মানুষের মঙ্গলের জন্য মোরশেদ মেম্বারের অপসারণ বা পদত্যাগ দাবি করেছেন তারা।

এই বিষয়ে হাসান মোঃ মোরশেদের কাছে জানতে চাইলে তিনি সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, একটি চক্র আমার বিরুদ্ধে উঠে লেগেছে। তারা আমাকে সামাজিকভাবে হেয় করতে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন জানান, ধুম ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্যের বিরুদ্ধে অপরাধমুলক কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকার একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন এলাকাবাসী। বিষয়টি খতিয়ে দেখার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারনে উদ্বুত পরিস্থিতির কারনে প্রশাসনের ব্যস্ততা থাকায় কিছুটা সময় লাগবে।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*