ব্রাসেলস শেখ হাসিনার জন্মদিন পালন, স্পীকারকে সংবর্ধনা

নিজস্ব প্রতিনিধি…
বেলজিয়াম আওয়ামীলীগের উদ্যোগে জাতীয় সংসদের স্পীকার ডঃ শিরিন শারমীন চৌধুরীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। শনিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৯ টা ব্রাসেলসের রয়েল কাশ্মীর রেস্টুরেন্টে এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে স্পীকার ব্রাসেলস ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে এশিয়ান- ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টারি পার্টনারশীপ কনফারেন্সে পানেল চেয়ার হিসাবে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব এবং sustainable development এর ওপর মূল বক্তব্য পেশ করেন। স্পীকারের সফরসঙ্গী হিসাবে ছিলেন সাবেক সহকারী অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাটর্নি জেনারেল এবং আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের সাবেক প্রসিকিউটর, ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পি এম,পি। সংবর্ধনা অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বেলজিয়াম এবং লুক্সেমবুর্গের বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাদাত হোসেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে শুভেচ্ছা প্রদান, প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা এবং আগামী সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য আহবান জানানো হয়। স্পীকার বরাবরে বেলজিয়াম আওয়ামী লীগ এক মানপত্র উপহার দেন। বেলজিয়াম আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, বাংলাদেশে, মৌলিক মানবাধিকার, নারীর অধিকার, নারীর ক্ষমতায়ন, এবং বাংলাদেশে সমতাভিত্তিক, উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্টার জন্য, মাননীয় স্পীকারের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

বক্তাগণ বলেন, ড: শিরিন শারমিন চৌধুরী, এশিয়া তথা ইউরোপ এবং এবং আমেরিকার প্রথম সর্বকনিষ্ঠ মহিলা স্পীকার। একজন আন্তর্জাতিক আইনজ্ঞ হিসাবে তিনি রোহিঙ্গা ইস্যু ,জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং সর্বোপরি বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের ভূমিকা সারা পৃথিবীতে তুলে ধরছেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্পিকার ড: শিরিন শারমীন চৌধুরী বলেন, মানবতার নেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পৃথিবীতে, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। পৃথিবীর দরবারে এবং জাতিসন্ঘে, শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে আজ উন্নত, ধর্মনিরেপক্ষ এবং সমতার ভিত্তিতে দেশ হিসাবে তুলে ধরেছেন। ১.৫ মিলিয়ন রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেয়া, বাংলাদেশ দরিদ্র দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তর হওয়া , নারীর ক্ষমতায়ন, মানবাধিকারের ওপর শেখ হাসিনা আজ সারা পৃথিবীতে প্রশংসনীয়। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এক miracle নয়, জননেত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বের কারণে আজ দেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং নিম্ন আয় থেকে মধ্যম আয়ে উন্নীত হওয়ার জন্য, জাতিসংঘের শর্তের চেয়ে, বেশি শর্ত পূরণ করে, বাংলাদেশ আজ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। মাননীয় স্পীকার , বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী থেকে এবং কারাগারের রোজনামচা থেকে রেফারেন্স দিয়ে বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের দীক্ষায় শিক্ষিত হয়ে, শোষণহীন এবং উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার জন্য আমাদের সবাইকে আত্মনিয়োগ করতে হবে. ” আমি যে Commonwealth পার্লামেন্টারী কমিটির চেয়ারম্যান হয়েছি, এটার অবদান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর, কারণ এর আগে শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে পৃথিবীর দরবারে তুলে ধরেছেন”, মাননীয় স্পিকার বলেন। মাননীয় স্পীকার,বেলজিয়াম আওয়ামী লীগকে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু এবং তার রক্ত ও আদর্শের উত্তরাধিকার শেখ হাসিনার উন্নয়নের রাজনীতি,১/১১এ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় জননেত্রী শেখ হাসিনাকে মুক্ত করার জন্য বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের কার্যক্রম, ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে, সন্ত্রাস বিরোধী শান্তি সম্মেলন, অনুন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়া, বাংলাদেশের পন্যের জন্য GSP (Generalised system of preferences ) রোহিঙ্গা ইস্সুতে,ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে resolution আনার জন্য manifestation , petition এবং conference এর উচ্ছসিত প্রশংসা করেন। তিনি বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের কল্যানমুলক ভবিষ্যত কর্মসূচির জন্য সমস্ত সহযোগিতার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এমপি ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পি বলেন, ” আজ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বিএনপি জামাত সহ স্বাধীনতার বিরোধী শক্তি নির্বাচনকে বিতর্কিত করার জন্য যে ষড়যন্ত্র করছে, আমাদের সে ষড়যন্ত্র কঠোরভাবে রুখতে হবে, সাবেক বিচারপতি সিনহা সহ যারা বিদেশে থেকে দেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে, তাদের ব্যাপারে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে.তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা,স্বাধীনতার মূল্যবোধ, এবং গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নাই, এজন্য আমাদের একসাথে কাজ করতে হবে” । এম পি রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে তার বক্তব্যের রেফারেন্স দিয়ে বলেন, সারা পৃথিবীতে আজ শেখ হাসিনা মানবতার এবং উন্নয়নের নেত্রী হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাদাত হোসেন বলেন, ” আমি আপনাদের এবং বেলজিয়াম আওয়ামীলীগকে প্রিয় মাতৃভূমির জন্য কাজ করার জন্য সমস্ত সহযোগিতা করে যাব। আমি সব সময় আপনাদের পাশে আছি,। উল্লেখ্য, রাষ্ট্রদূত, ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে, বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের সমস্ত কার্যক্রম, বিশেষ করে বাংলাদেশের economic graduation , রোহিংগা ইস্যুতে সমস্ত কাজে ‘Leader ‘ হিসাবে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেন।

বেলজিয়াম আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং কমিউনিটি লিডার শহিদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী রতন। মঞ্চে ছিলেন ইউরোপিয়ান আওয়ামীলীগের প্রকার সম্পাদক খোকন শরীফ, বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের কার্যক্রমকে তুলে ধরে বক্তৃতা করেন, সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি বিধান চন্দ্র দেব, সহসভাপতি ফায়সাল আজাদ তালুকদার ,যুগ্ম সম্পাদক, দাউদ খান সোহেল প্রমুখ।মাননীয় স্পিকারের নিবেদনে মানপত্র পাঠ করেন মিসেস শওকত মির্জা।সভাপতি শহিদুল হক মাননীয় স্পিকারের কাছে এই মানপত্র উপহার দেন।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*