মিরসরাইয়ের দুর্বার প্রগতি সংগঠন : নানা কার্যক্রমে আজ সমৃদ্ধই নয়-সর্বমহলে সমাদৃত


হাসান সাইফ উদ্দীন‌..
অদ্যবধি যাপিত জীবনের অনেক ঘাত-প্রতিঘাত, সংগ্রাম ও ঘটনার ঘনঘটায় সমৃদ্ধ, শত অম্ল-মধুর স্মৃতিতে রাঙানো ব্যাপক রঙিন স্বপ্ন বুননে, এক ঝাঁক উদ্যোমী তারুণ্যের ব্যয়িত ক্ষনের সম্মিলন- বলছিলাম ২০১১ সালে ৭ জানুয়ারি ২৪ তরুণের গড়া “দুর্বার প্রগতি সংগঠন” এর কথা।

দিন যায়, দিন আসে। কালের পরিক্রমায় আজ আমরা সপ্তম বছরে। চাঁদনী রাতের শেষে প্রতিদিনকার রবির রঙিন আলো, আমাদের সাজিয়ে তুলে আরো বর্ণিলভাবে। ফেলে আসা প্রতিটা দিন-ক্ষন যেন এক একটা স্মৃতির পসরা। যেখানে লুকিয়ে আছে আবেগ-উৎকন্ঠা, ঘৃণা-ভালবাসা, আশা-নিরাশা, উদ্যম-উদ্দীপনা, উচ্ছ্বাস-উল্লাস। আঁধার শেষে দিনের আলো ফুটবেই, আবার আলো শেষে আঁধার আসবেই- এটাই নিয়ম। সম্বল বলতে আমাদের, মহৎ উদ্দেশ্য, বুকভরা সাহস-সততা। এ প্রেরণায় সকল অসুন্দর কে পায়ে ধলে এতটুকু অগ্রযাত্রা। যাঁর সাথে প্রত্যক্ষভাবে কাজ করছে ২২০ জন দুর্বার। যাঁর মধ্যে প্রতিষ্ঠাতা ২৪ জন, সম্মানিত পৃষ্ঠপোষক সদস্য ২১ জন, দাতা সদস্য ১৮ জন, আজীবন সদস্য ৭৮ জন ও সদস্য ৭৯ জন। বেশি কিছু করছি, তা বলবোনা। শতশত বছর টিকে থেকে যশ-জৌলুশ ধরে রাখার প্রানন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাব তাও বলছিনা। শ্রেষ্ঠত্বের তকমা গায়ে লাগিয়ে অযথা অস্তিত্ব ধরে রাখার প্রতিযোগিতায়ও নামতে চাই না। আমাদের চাওয়া ও উদ্দেশ্য স্পষ্ট, সাধ্যের মধ্যে নিজেদের-সবাইকে আরেকটু রাঙিয়ে তোলা। সবার সম্মিলনে সুন্দর একটা সমাজ গড়া। সে লক্ষে আমাদের তরীতে পাল তোলা।

যে পথে দুর্বার’র ভান্ডার আজ সমৃদ্ধ। কি ভাবছেন? কিসে সমৃদ্ধ! অর্থে? মোটেই না! সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তি ও শিক্ষা উপকরণ প্রদান, পাঠাগার কার্যক্রম, অসহায় মানুষের চিকিৎসা ও গরীব মেয়েদের বিয়েতে সহায়তা, রক্তদান, রক্তের গ্রুপ নির্ণয়, বৃক্ষরোপন, বৃক্ষবিতরন, পরিচ্ছন্নতা অভিযান, ঈদ সামগ্রী বিতরন, শীত বস্র বিতরন, বেকার যুবকদের প্রশিক্ষণ, মাদক-বাল্যবিবাহ-যৌতুক-জঙ্গীবিরোধী জনসচেতনতা সৃষ্টি, স্বাক্ষরতা ও শিক্ষা জরিপ কর্মসূচি, মেধাবিকাশে সহায়ক স্কুল ভিত্তিক বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন, বিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত উন্নয়নে সহায়তা, কৃষক-মুক্তিযোদ্ধা-গুণীজন-কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা, খেলাধুলা, সংস্কৃতির চর্চা, ধর্মীয় ও জাতীয় দিবসসমুহ উদযাপন সহ একটা সুন্দর-স্বপ্নীল সমাজ বিনির্মাণে আমাদের প্রচেষ্টা আর বিশদ বর্ণণার অপেক্ষা রাখেনা। এসকল কার্যক্রমে দুর্বার আজ সমৃদ্ধই নয়- সর্বমহলে সমাদৃত।

যার দরুণ খুব অল্প সময়ে সংগঠনের ঝুড়িতে জমা হয় দুটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতিও। ২০১৪ সালে সমাজসেবা অধিদপ্তর চট্টগ্রাম জেলা সমাজসেবা কার্যালয় ও ২০১৭ সালে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর চট্টগ্রাম জেলা যুব উন্নয়ন কার্যালয় থেকে নিবন্ধন লাভ করে। যার নিবন্ধন নম্বর হচ্ছে চট্ট.৩০৮৩/১৪ সসেঅ ও চট্ট.তালিকা নং-৪৩৮/১৭ যুউঅ। এখন আমরা আরো নবউদ্যমে উজ্জীবিত।

সুন্দরের এ অভিযাত্রায় আপনাদের সহযোগীতায় আমরা কৃতজ্ঞ। আমাদের বিশ্বাস চলার পথে ভুল-ত্রুটি আপনাদের ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টি এড়িয়ে যাবে না। সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে আমাদের এ ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা সবার যোগে আরো বেশি দীর্ঘ হোক- এ প্রত্যাশা দুর্বারদের।

লেখক-সভাপতি, দুর্বার প্রগতি সংগঠন

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*