মিরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় নয়ন চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদেক

দলের বর্ধিত সভায় সীদ্ধান্ত অনুযায়ী দীর্ঘ সাত বছর পর আগামী ১৬ নভেম্বর মিরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হওয়ার কথা রয়েছে। ২৪ অক্টোবর থেকে ইউনিয়ন ও পৌরসভা পর্যায়ে কাউন্সিল শুরু হয়েছে। শেষ হবে আগামী ৪ নভেম্বর। প্রচার-প্রচারনায় জমে উঠেছে ইউনিয়ন ও পৌরসভার কাউন্সিল। নেতা-কর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। উপজেলা কাউন্সিলকে ঘিরে দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়েছে। সভাপতি পদ নিয়ে খুব একটা আলোচনা না থাকলেও সাধারণ সম্পাদকের পদ নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে। ইতমধ্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের বেশ কয়েকজন নেতা সাধারণ সম্পাদক পদে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন।

দলীয় কর্মীরা পছন্দের প্রার্থীকে নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। সম্ভ্যাব্য প্রার্থীদের মধ্যে অন্যতম হলেন উপজেলার ১ নং করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হোসেন নয়ন। এছাড়া ৪ নং ধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল খায়ের মোঃ জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া, মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাষ্টার কবির আহম্মদ নিজামী, ৮ নং দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান বিপ্লবের নামও শোনা যাচ্ছে।

এনায়েত হোসেন নয়ন করেরহাট ইউনিয়নের পশ্চিম জোয়ার গ্রামের আলী আহম্মদ আমিন ভূঁইয়া বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। করেরহাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম রফিক আহম্মদ প্রকাশ চট্টু চেয়ারম্যানের ছোট ছেলে ও বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ সিএনসি জাফরের নাতি।

জানা গেছে, চেয়ারম্যান নয়ন ১৯৮২ সালে তিনি করেরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন, ১৯৯০ সালে চট্টগ্রাম সিটি কলেজ ছাত্র সংসদের এজিএস, ১৯৯৩ এবং ১৯৯৫ সালে রাজধানীর মিরপুর আইন কলেজের ভিপি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য, উপজেলা আওয়ামীলীগের মোহাম্মদ আলী-নুরুল হুদা কমিটিতে প্রচার সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯৭ সাল থেকে টানা ১৫ বছর করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি রাজনীতি ছাড়াও বিভিন্ন শিক্ষা, সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত রয়েছেন। তিনি বারইয়ারহাট কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য, করেরহাট গনিয়াতুল উলুম হোসাইনীয়া আলিম মাদ্রাসার সভাপতি, হাবিলদারবাসা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি, করেরহাট এনবি শিশু একাডেমীর পরিচালক, করেরহাট কেএম উচ্চ বিদ্যালয় প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের সভাপতি, চট্টগ্রামস্থ মিরসরাই সমিতির দাতা ও পৃষ্টপোষক সদস্য, চট্টগ্রাম জেলা রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সদস্য, করেরহাট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সভাপতি, অভিযান ক্লাবের সাবেক সভাপতি, পশ্চিম জোয়ার পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির সভাপতি, করেরহাট বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি, মিরসরাই প্রেসক্লাবের আজীবন সদস্য। তিনি করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের অটিজম শিশুদের জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগে নাবিল বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছেন। ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীদের শিক্ষার জন্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন স্কুল ও নলখোঁতে শেখ রাশেল স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছেন।

এনায়েত হোসেন নয়ন বলেন, আমি ছাত্র জীবন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হই। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে এখনো পর্যন্ত দলীয় সকল কর্মসূচী পালনে রাজপথে সক্রিয় আছি। বিগত ইউনিয়ন নির্বাচনে করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই। নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে বাস্তবায়ন করেছি। যা অনেকটাই দৃশ্যমান। এছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বিগত কাউন্সিলে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে দলীয় সকল কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করেছি।

সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তরুণ তুর্কি এনায়েত হোসেন নয়ন বলেন, বঙ্গবন্ধুর আর্দশে দীক্ষিত হয়ে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনাকালীন ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতির হাতেখড়ি হয়। স্কুল জীবন থেকে প্রায় ২৮-৩০ বছর ধরে আমার প্রিয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের রাজনৈতিক আদর্শ আমাকে অনুপ্রাণিত করে। আমি মোশাররফ হোসেনের একজন আস্থাভাজন কর্মী হিসেবে তার সানিধ্যে গিয়ে প্রিয় নেতার সকল প্রকার সিদ্ধান্তের বাস্তবায়নের চেষ্টা করছি। যতদিন বেঁচে থাকবো প্রিয় নেতার আদর্শে রাজনীতি করে যাবো।

তিনি আরো বলেন, দলের দুঃসময়ে রাজপথে অগ্রভাগে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছি। ২০১৩-২০১৪ সালে বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও পোড়াও কর্মকান্ড সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে প্রতিহত করেছি। তিনি আরো বলেন, দলকে সু-সংগঠিত ও বৃহৎ পরিসরে জনগণের সেবা করতে আসন্ন উপজেলা আওয়ামীলীগের কাউন্সিলে আমি সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হবো। বৃহত্তর চট্টগ্রামের অভিভাবক বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি’র স্বপ্নের আধুনিক ও পরিকল্পিত মিরসরাই গঠনে কাজ করবো। তারুণ্যের অহংকার আইটি বিশেষজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ার মাহবুবুর রহমান রুহেলের ভিশন মাদকমুক্ত মিরসরাই ও দক্ষ জনশক্তি গঠনে সচেষ্ট থাকবো। প্রিয় নেতা সাবেক সফল মন্ত্রী ৭বারের নির্বাচিত এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ এমপিকে অনুপ্রেরণা ভেবে উনার স্বপ্নের সমৃদ্ধ মিরসরাই গড়ার একজন আদর্শ কর্মী হিসেবে নিজেকে অদ্যবধি নিয়োজিত রেখেছি। ভবিষ্যতে উনার নির্দেশিত পথ ধরে উনার সুযোগ্য সন্তান বিশিষ্ট আইটি বিশেষজ্ঞ মাহবুবুর রহমান রুহেলের ডিজিটাল ও শিল্প সমৃদ্ধ মিরসরাই গড়ার একজন সহযাত্রী হিসাবে কাজ করতে চাই। আমি আশা করছি দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ও কাউন্সিলরগণ আমার অতীত কর্মকান্ড বিবেচনা করে আমাকে যথাযথভাবে মূল্যায়িত করবে।

Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*