প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে এসে রক্তাক্ত হলো রোহিঙ্গা শিশু

জয়নাল আবেদীন, টেকনাফ থেকে…

কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের লেদা রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের প্রবেশমুখ। শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) তখন দুপুর সাড়ে ১২টা। সড়ক পার হতে গিয়ে মিনি ট্রাকের ধাক্কায় ছিটকে পড়ে এক শিশু। মুহূর্তেই শোরগোল পড়ে যায়। শিশুটিকে ঘিরে ভিড় জমায় অনেক মানুষ। ভিড় ঠেলে ভেতরে ঢুকে দেখা যায়, দুর্ঘটনায় আহত শিশুটি বসে কাঁদছে। তাকে ঘিরে এক জ্যেষ্ঠ নারীর আহাজারি। দাঁড়িয়ে বুকফাটা আর্তনাদ আরো এক নারীর।

শিশুটির বাম চোখের নিচের অংশ রক্তাক্ত। চামড়া থেতলে গিয়ে রক্ত ঝরঝরিয়ে পড়ছিলো। বাম পা-ও আক্রান্ত। পরে তাকে নেওয়া হয় রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ভেতরে থাকা একটি বেসরকারি সংস্থার ক্লিনিকে; যেখানে কেবল প্রাথমিক চিকিৎসাটাই মেলে।

পরে খোঁজ নিয়ে জানা গেলো, ওই শিশুটির নাম সাহিদ। মা, দাদু এবং আরো তিন ভাই-বোনের সঙ্গে পালিয়ে এসেছে মিয়ানমার থেকে। লেদা ক্যাম্পে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রাস্তা পার হতে গিয়েই মিনি ট্রাকের ধাক্কায় ছিটকে পড়ে সে।

গত দুদিন ধরে একেবারে নাফ নদীর তীর ঘেঁষা গ্রামগুলোতে শুরু হয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বরতা। নির্যাতন সইতে না পেরে এবং প্রাণে বাঁচতে রাতের আঁধারে আগে থেকেই অনুপ্রবেশ করছিলো রোহিঙ্গারা। এবার দিনের বেলায়ও অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটছে।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*